মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন

১৮ বছরে পা রাখছে বৈশাখী টেলিভিশন

ফোরাম প্রতিবেদক / ২৬১ জন দেখেছেন
আপডেট : ডিসেম্বর ২৬, ২০২২
১৮ বছরে পা রাখছে বৈশাখী টেলিভিশন
দর্শক ফোরামের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

বৈশাখী টেলিভিশনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আগামীকাল মঙ্গলবার (২৭শে ডিসেম্বর)। দেশের জনপ্রিয় এই স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল পথচলার ১৭ বছর পেরিয়ে আঠারো’তে পা রাখবে। পেশাদারিত্ব ও সৃজনশীলতার মিশেলে দর্শকের হৃদয় জয় করেছে বৈশাখী। করোনা অতিমারীর পিঠে বিশ্বজুড়ে যুদ্ধ ও আর্থিক মন্দার উদ্বেগ। তাই এবারও প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বৈশাখী পরিবার ঐতিহ্যবাহী উৎসব আয়োজনে বিরত থাকছে। তবে উৎসব চলবে বৈশাখীর পর্দায়, আগামীকাল দিন ও রাতব্যাপী। প্রচারিত হবে বৈচিত্রময় অনুষ্ঠান। বৈশাখীর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানিয়ে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী।

বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ ও বৈচিত্র্যময় বিনোদন অনুষ্ঠানের জন্য বৈশাখী টেলিভিশন দেশের সম্প্রচার জগতে দর্শকের বিশেষ ভালবাসা পেয়ে আসছে। দেশের গন্ডি পেরিয়ে নানা দেশে বাংলা ভাষাভাষীরা বৈশাখীর অনুষ্ঠান ও খবরে চোখ রাখেন সাগ্রহে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও জনপ্রিয় হয়েছে বৈশাখীর খবর ও অনুষ্ঠান।

আজ রাত পোহালেই বৈশাখী টেলিভিশন সাফল্যের পথচলার ১৭ বছর পেরিয়ে আঠারোতে পা রাখবে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বৈশাখী টেলিভিশনের সাফল্য কামনা করে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ডক্টর শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ। বাণীতে তাঁরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে বৈশাখী বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ ও অনুষ্ঠান পরিবেশন করে মানুষের উন্নত মনন গঠনে ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ জানান। এছাড়াও জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসসহ সকল অপতৎপরতা দমনে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে বৈশাখী টেলিভিশন আগামীতেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে প্রত্যাশা রাখেন।

বৈশাখী টেলিভিশনকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা পত্র পাঠিয়েছেন অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স- অ্যাটকো সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী। তিনি বৈশাখী’র সাফল্য কামনা করেছেন।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত বৈশাখী টেলিভিশনকে অক্লান্ত পরিশ্রমে দর্শকের কাছে জনপ্রিয় করার নেপথ্যের কারিগর উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক টিপু আলম মিলন। তিনি প্রতিষ্ঠাবর্ষিকীতে সাফল্যের কৃতিত্ব দেন দর্শকদেরকে।

করোনার পিঠে বৈশ্বিক আর্থিক মন্দায় উৎসব করছে না বৈশাখী। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজন থাকবে শুধু বৈশাখীর পর্দায়। দিন-রাত থাকবে বৈচিত্র্যময় বিনোদন অনুষ্ঠান। মঙ্গলবার (২৭শে ডিসেম্বর) সকালে গাইবেন শবনম প্রিয়াংকা ও তিমির নন্দী। দেবলীনা সুর ও ইউসুফ আহমেদ খানের রবীন্দ্র ও নজরুল সঙ্গীত। পৃথক অনুষ্ঠানে আধুনিক গান করবেন রাজিব ও প্রিয়াংকা বিশ্বাস, খুরশীদ আলম ও নদী, আগুন ও ইয়াসমিন লাবন্য। চারটি অনুষ্ঠানে লোক সঙ্গীত গাইবেন রাফাত ও ইসরাত জাহান জুঁই; গামছা পলাশ, মুনিয়া মুন ও কানিজ খন্দকার মিতু; ফকির শাহাবুদ্দিন ও রেখা সুফিয়ানা এবং বিন্দুকণা।

এছাড়াও থাকবে দুটি বিশেষ একক নাটক। রাত ৯টায় মহিন খানের রচনা ও পরিচালনায় হবে ‘বাসর ঘরে চোর’ এবং রাত ১০ টায় মমিনুল ইসলাম তানিনের রচনা ও পরিচালনায় বিশেষ নাটক মোহ মায়া।

বাংলা, বাঙালি সংস্কৃতি ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মিশেলে পথচলা বৈশাখী টেলিভিশন দর্শককে আগামীতে আরও ভাল পরিবেশনা দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। টেলিভিশন দর্শক ফেরামের পক্ষ থেকে রইলো শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

The short URL of the present article is: https://tvforumbd.com/5k2y


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এ বিভাগের আরো খবর

২১ জুন-23 অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান