বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১২:০১ পূর্বাহ্ন

সানি দেওলের বাংলোর নিলাম নোটিস প্রত্যাহার

ফোরাম প্রতিবেদক / ৭৩ জন দেখেছেন
আপডেট : আগস্ট ২১, ২০২৩
সানি দেওলের বাংলোর নিলাম নোটিস প্রত্যাহার
দর্শক ফোরামের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

রবিবার জানা যায়, সানি দেওলের বকেয়া ৫৬ কোটি টাকা পুনরুদ্ধারের জন্য তাঁর জুহুর বাংলো বাড়ি বিক্রি করা হচ্ছে। সূত্র মারফত খবর মেলে, ২৫ অগাস্ট জুহুর সম্পত্তির ই-নিলাম করা হবে।

তবে ২৪ ঘণ্টা পেরতে না পেরতেই পালটা সংশোধনী প্রকাশ করে ড্যামেজ কন্ট্রোলে নামল ব্যাংক। অভিনেতা ও বিজেপি সাংসদ সানি দেওলের জুহুর বাংলো নিলামের নোটিস প্রত্যাহার করা হল। রাজ্যের অধীনে থাকা ‘ব্যাঙ্ক অফ বরোদা’ আজই প্রকাশ করেছে বিবৃতি।

রবিবার জানা যায়, সানি দেওলের বকেয়া ৫৬ কোটি টাকা পুনরুদ্ধারের জন্য তাঁর জুহুর বাংলো বাড়ি বিক্রি করা হচ্ছে। সূত্র মারফত খবর মেলে, ২৫ অগাস্ট জুহুর সম্পত্তির ই-নিলাম করা হবে। ২০২২ সালের ডিসেম্বর মাস থেকে ‘ব্যাঙ্ক অফ বরোদা’র কাছে ৫৫.৯৯ কোটি টাকা লোন বকেয়া ছিল গুরদাসপুরের সাংসদের।

এই আবহে আজ সোমবার ব্যাঙ্কের তরফে একটি বিবৃতি জারি করা হয়, সেখানে বলা হয়েছে, ‘মিস্টার অজয় সিং দেওল ওরফে মিস্টার সানি দেওলের বিক্রয় নিলাম নোটিস সংক্রান্ত ই-নিলাম নোটিসের সংশোধনী প্রযুক্তিগত কারণে প্রত্যাহার করা হয়েছে।’ রবিবার ব্যাঙ্কের তরফে জানানো হয় যে জুহু অভিনেতার যে সম্পত্তি রয়েছে, ‘সানি ভিলা’, তার নিলাম শুরুই হবে ৫১.৪৩ কোটি টাকা থেকে। সর্বনিম্ন বিডিং অ্যামাউন্ট রাখা হয় ৫.১৪ কোটি টাকা।

এর সঙ্গে, ৫৯৯.৪৪ বর্গ মিটার সম্পত্তি, যেখানে সানি ভিলা এবং সানি সাউন্ডস রয়েছে, সেটাও নিলাম হওয়ার কথা ছিল। দেওল পরিবারের মালিকানাধীন সংস্থা ‘সানি সাউন্ডস’ এবং যে লোন নেওয়া হয় তার ‘কর্পোরেট গ্যারান্টর’। এই লোনের ‘পার্সোনাল গ্যারান্টর’ হচ্ছেন বর্ষীয়াণ অভিনেতা ধর্মেন্দ্র, সানি দেওলের বাবা।

রবিবার নোটিসে বলা হয় যে দেওল পরিবার এখনও ব্যাঙ্কের সঙ্গে তাদের বকেয়া ঋণ নিষ্পত্তি করতে পারে এবং ২০০২ সালের SARFAESI Act-এর অধীনে নিলাম প্রক্রিয়া বন্ধ করতে পারে। এরপর সোমবার ব্যাঙ্কের তরফে যে বিবৃতি এসেছে তাতে কটাক্ষ ছোঁড়া হয়েছে কংগ্রেসের তরফে।

প্রসঙ্গত, এখন শিরোনামে সানি দেওল, সৌজন্যে, তাঁর সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘গদর ২’। সানি ও আমিশা পটেলের জুটিতে তৈরি এই ছবি রীতিমতো ঝড় তুলেছে বক্স অফিসে, ভাঙছে একের পর এক রেকর্ড। ২০০১ সালে মুক্তি পায় ‘গদর: এক প্রেম কথা’, যে ছবির স্মৃতি মানুষের মনে আজও তরতাজা। ২২ বছর পর তৈরি তারই সিক্যুয়েলও একইভাবে লাভ করছে জনপ্রিয়তা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এ বিভাগের আরো খবর

২১ জুন-23 অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান