সংস্কৃতি-অঙ্গনে ২০১৯ এ হারিয়েছি যাদের

ফোরাম প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৬৪ জন দেখেছেন
star 2019
সংস্কৃতি-অঙ্গনে ২০১৯ এ হারিয়েছি যাদের

সংস্কৃতির বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের অবদান চিরস্মরণীয়। যারা আর আমাদের মাঝে নেই। ২০১৯ সালে এদের মধ্যে থেকে অনেককেই হারিয়েছি। সেসব হারিয়ে যাওয়া বরেণ্য ব্যক্তিদের তুলে ধরা হলো পাঠকদের কাছে।

ইফতেখারুল আলম
ষাটের দশকের সিনেমার প্রখ্যাত প্রযোজক ইফতেখারুল আলম ৫ জানুয়ারি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত রোগসহ নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি।

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল
মুক্তিযোদ্ধা, গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। গত ২২ জানুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

শাহনাজ রহমতউল্লাহ
কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী শাহনাজ রহমতউল্লাহ গত ২৩ মার্চ হৃদরোগে নিজ বাসায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

টেলি সামাদ
বরেণ্য কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদ গত ৬ এপ্রিল স্কয়ার হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

সালেহ আহমেদ
অভিনেতা সালেহ আহমেদ দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে অসুখে ভুগে ২৪ এপ্রিল ৮৩ বছর বয়সে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন।

সুবীর নন্দী
৭ মে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের এমআইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন দেশবরেণ্য এ কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী। তিনি ডায়াবেটিস, হার্ট ও কিডনি সমস্যায় ভুগছিলেন।

তমা খান
গত ৮ মে রাজধানীর মিরপুরে অস্বাভাবিক মৃত্যু হয় মঞ্চ ও ছোট পর্দার অভিনয়শিল্পী তমা খানের। ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়।

মায়া ঘোষ
১৯ মে মারা গেছেন অভিনেত্রী মায়া ঘোষ। ২০০০ সালে মায়া ঘোষের ক্যানসার ধরা পড়ে। ২০০৯ সালের দিকে অনেকটা সুস্থ হয়ে ওঠেন। এরপর কিডনি, লিভার ও হাঁটুর সমস্যা দেখা দেয়।

খালিদ হোসেন
বরেণ্য নজরুলসংগীত শিল্পী খালিদ হোসেন গত ২২ মে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন হৃদরোগসহ বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন।

মমতাজউদ্দীন আহমেদ
প্রখ্যাত নাট্যকার, অভিনেতা ও ভাষা সৈনিক মমতাজ উদ্দীন আহমদ চলতি বছরের ২ জুন মৃত্যুবরন করেন।

বাবর
চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক ও পরিচালক বাবর মারা যান ৬ আগস্ট। তিনি ‘বাংলার মুখ’, ‘রংবাজ’সহ তিন শতাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

কালিদাস কর্মকার
বাংলাদেশের প্রথিতযশা চিত্রশিল্পী কালিদাস কর্মকারকে গত ১৮ অক্টোবর ইস্কাটনের বাসায় অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে ল্যাবএইড হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হুমায়ূন সাধু
তরুণ নাট্য নির্মাতা ও অভিনেতা হুমায়ূন সাধু মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ অক্টোবর শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

কালা আজিজ
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা কালা আজিজ ২৩ নভেম্বর মারা গেছেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। প্রায় তিন শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন কালা আজিজটি

পৃথ্বী রাজ
তরুণ শিল্পী, সুরকার, সংগীত পরিচালক পৃথ্বী রাজ। গত ১৫ ডিসেম্বর নিজের স্টুডিও জিলাপিতে কাজ করার সময় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা যান।

শেয়ার করুন

এ বিভাগের অন্যান্য খবর