বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন

ভিউয়ার্স চয়েস বেস্ট টেলি অ্যাওয়ার্ড পেলেন যারা

ফোরাম প্রতিবেদক / ২১৭ জন দেখেছেন
আপডেট : মার্চ ২৩, ২০২৩
ভিউয়ার্স চয়েস বেস্ট টেলি অ্যাওয়ার্ড পেলেন যারা প্রদান
দর্শক ফোরামের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

দর্শকদের আনন্দ, বিনোদন এবং সংবাদের চাহিদা মেটাতে সবসময় টিভি চ্যানেলগুলোকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। দর্শকদের চাহিদার ওপর জরিপ করে টেলিভিশন দর্শক ফোরাম যে কাজটি করছে সেটি প্রশংসার দাবিদার।
গতকাল ২২ মার্চ বুধবার ঢাকার হোটেল প্যান প্যাসেফিক হোটেল সোনারগাঁও এ টেলিভিশন দর্শক ফোরামের ভিউয়ার্স চয়েস বেস্ট টেলি অ্যাওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেলপথমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন এ কথা বলেন।
তিনি বলেন মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার কথা নতুন প্রজন্মকে জানাতে টিভি চ্যানেলগুলো বড় ভুমিকা রাখতে পারে। টিভি একমাত্র মাধ্যম যা আনন্দ বিনোদন এবং সংবাদের মধ্যদিয়ে সমাজকে নতুন বার্তা পৌছাতে পারে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল দত্ত, বিএফইউজের সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল এবং এটিএন বাংলার উপদেষ্টা (অনুষ্ঠান) তাশিক আহমেদ। এছাড়াও আরো বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক নেতা মশিউর রহমান, টেলি অ্যাওয়ার্ড উদযাপন কমিটির সভাপতি বাদল আহমেদ, দর্শক ফোরামের আহবায়ক সুমন মোস্তফা এবং আহমেদ সিরাজ।
২০২২ সালে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচারিত অনুষ্ঠান ও সংবাদের উপর জরিপ করে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে লাইফটাইম অ্যাচিভম্যান্ট অ্যাওয়ার্ড দয়ো হয় এটিএন বাংলা, এটিএন নিউজ এর চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমানকে। সেরা সংবাদভিত্তিক চ্যানেলের পুরস্কার পেয়েছে নিউজ২৪ এবং বিনোদন চ্যানেলের মধ্যে সেরা সংবাদ এর পুরস্কার পেয়েছে বৈশাখী টিভি। ৩২টি চ্যানেলের মধ্যে ২৬টি চ্যানেলের বিনোদন অনুষ্ঠান, বিজ্ঞাপন প্রচার সময়সহ অন্যান্য বিষয়ে বিবেচনা কওে চুড়ান্ত সেরা বিনোদন চ্যানেলের পুরস্কার জয় করেছে এটিএন বাংলা। অনুষ্ঠানে বিশেষ ক্যাটাগরিতে টি-স্পোর্টস চ্যানেলকে সেরা চ্যানেলের পুরস্কার প্রদান করা হয়। সেরা সাংবাদিক বিভাগে পুরস্কার পেয়েছেন এ জিহাদুর রহমান (বিটিভি), মীনাক্ষী চৌধুরী (বিটিভি) এবং হোমায়রা ফারুকী (গাজী টিভি)। বিশেষ জুড়ি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে ধারাবাহিক নাটক: স্মৃতির আল্পনা আঁকি (এটিএন বাংলা), ফুড ট্যুরিজম (নিউজ২৪), সভ্যতার প্রধান নির্বাহী শাকিল হোসেন, শিল্প উদ্যোক্তা : ফারহানা আক্তার, সঙ্গীত শিল্পী আনিসা তালুকদার এবং স্বপ্নীল সংগঠনের চেয়ারম্যান মনজুরুল আলম টিপু। এছাড়াও অন্যান্য বিভাগে যারা পুরস্কার পেলেন তারা হলেন সেরা অভিনেতা (একক নাটক) আব্দুন নুর সজল (ড্রিম গার্ল), সেরা প্রযোজক (ধারাবাহিক নাটক) : তামান্না আক্তার যুথী (প্রবাস পল্লী, একুশে টিভি), সেরা পরিচালক (ধারাবাহিক নাটক) : মঈন খান রূপি (প্রবাস পল্লী, একুশে টিভি), সেরা গল্পকার (ধারাবাহিক নাটক) : মাসউদুর রহমান আদিত্য (প্রবাস পল্লী, একুশে টিভি), সেরা উদীয়মান অভিনেত্রী (ধারাবাহিক নাটক) : সোহানা শারমিন সীমা (প্রবাস পল্লী, একুশে টিভি), সেরা অনুষ্ঠান প্রযোজক : আলেকজান্ডার মোহাম্মদ (সার্চ লাইট, চ্যানেল২৪), সেরা অপরাধ বিষয়ক অনুষ্ঠান : টিম আন্ডারকাভার (নিউজ২৪), সেরা স্বাস্থ্য বিষয়ক অনুষ্ঠান : স্বাস্থ্য সংলাপ (নিউজ২৪), সেরা রান্না বিষয়ক অনুষ্ঠান : কুইক ব্রেকফাস্ট (এটিএন বাংলা), সেরা টক শো সংবাদ (রাজনৈতিক) : জনতস্ত্র গণতন্ত্র (নিউজ২৪), সেরা টক শো বিনোদন (রাজনৈতিক) : এটিএন বাংলা সংলাপ (এটিএন বাংলা), সেরা অনলাইন নিউজ (টিভি) : চ্যানেল২৪, সেরা টক শো (সামাজিক) : যে কথা কেউ বলেনি (এটিএন বাংলা), সেরা টক শো (অর্থনীতি) : অর্থনীতি ভাবনা (নিউজ২৪), সেরা সংবাদ পাঠিকা: অহনা মোস্তাকিম (গাজি টিভি), তানিয়া আফরিন (দীপ্ত টিভি), সেরা উপস্থাপিকা : মৌসুমী মৌ (এটিএন বাংলা), শায়লা শারমিন (বৈশাখী টিভি), তানিয়া আফরিন (বিটিভি), সেরা উপস্থাপক : আশিকুর রহমান শ্রাবণ (নিউজ২৪), সেরা পরিচালক (অনুষ্ঠান) জামাল রেজা (মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন, চ্যানেল আই), সেরা নাট্য পরিচালক : জিয়াউদ্দিন আলম (এক সেকেন্ডের ম্যারেজ)।

ভিউয়ার্স চয়েস বেস্ট টেলি অ্যাওয়ার্ড পেলেন যারা প্রদান
অনুষ্ঠানে দর্শক ফোরামের পক্ষ থেকে জানানো হয় দেশের টেলিভিশন দর্শকের ৭০ শতাংশই বিদেশি (বিশেষ করে ভারতীয়) বিভিন্ন চ্যানেলে আসক্ত। দেশীয় টেলিভিশন চ্যানেলের দর্শক মাত্র ১৮ শতাংশ। ১২ শতাংশ দর্শক বাংলাদেশী কোন টিভি চ্যানেল দেখেন না। টেলিভিশন দর্শক ফোরামের সাম্প্রতিক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। ২৮ শতাংশ দর্শক ওটিটি প্লাটফম বা অনলাইনে টিভির অনুষ্ঠান দেখে থাকেন।
জরিপে পাওয়া তথ্য অনুসারে, দেশের শতকরা ৮৫ শতাংশ ক্যাবল অপারেটর বাংলাদেশের সব চ্যানেল ক্যাবলে সঞ্চালন করে। তারপরেও শতকরা ৭৫ জন দর্শক বাংলাদেশি ৩২টি চ্যানেলের নামও বলতে পারেন না।
টেলিভিশন দর্শক ফোরামের হিসাবে সারাদেশে অনলাইন এবং টেলিভিশন মাধ্যমে প্রায় ৮ কোটি স্যাটেলাইট চ্যানেলের দর্শক রয়েছেন। এর মধ্যে ৩ কোটি মহিলা বিদেশী বাংলা ভাষার চ্যানেল ব্যাতিত বাংলাদেশের কোন চ্যানেল দেখেন না। তবে বিদেশী সিরিজ বাংলায় ডাবিং করে দীপ্ত টিভি এবং এসএটিভি কিছুটা জনপ্রিয়তা পেয়েছে। গ্রাম অঞ্চলে এটিএন বাংলা, মাই টিভি, বৈশাখী টিভি এবং মোহনা টিভি বাংলা ছবির জন্য বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

ভিউয়ার্স চয়েস বেস্ট টেলি অ্যাওয়ার্ড পেলেন যারা প্রদান
বর্তমান সরকারের আইটি সেক্টরে ব্যপক উন্নয়নের ফলে মোবাইল, ট্যাব এবং কম্পউটারে দেশ-বিদেশের টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠান উপভোগ করছেন দর্শকরা। এর কোন হিসাব নেই বাংলাদশেী কোন টিআরপি করা প্রতিষ্ঠানের কাছে।
অন্যদিকে দেশের দর্শকরা একঘেয়েমি বিনোদন চ্যানেলগুলোর মাঝে দুরন্ত টিভি এবং টি-স্পোর্টস নতুন মাত্রা যোগ করেছে। এ দুটি চ্যানেল দর্শককে আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে।
অপরাধ ও অনুসন্ধানমূলক অনুষ্ঠানের মধ্যে সার্চ লাইট (চ্যানেল ২৪), উন্মোচন (মাছরাঙ্গা টিভি), টিম আন্ডারকাভার (নিউজ২৪),‘খোঁজ’ (এসএটিভি) দর্শক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। জনতস্ত্র গণতন্ত্র (নিউজ২৪), এটিএন বাংলা সংলাপ (এটিএন বাংলা) একাত্তর মঞ্চ (একাত্তর টিভি) অনুষ্ঠানগুলোর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক দর্শক রয়েছে। নতুন চ্যানেলগুলো অনুষ্ঠান বা ইভেন্ট দিয়ে তেমন একটা জনপ্রিয়তা না পেলেও সঙ্গীতভিত্তিক চ্যানেল গানবাংলার’র চাহিদা রয়েছে।
দর্শক টিভি চ্যানেলের কাছে কি চায়, কোন ধরনের বিজ্ঞাপন পছন্দ করে, কোন বিজ্ঞাপন সচেতনতা বৃদ্ধি ও প্রভাব পড়ে এসবের ওপর ঢাকা ও ঢাকার বাইরে জরিপ করা হয়।
২০২২ অক্টোবর থেকে ২০২৩ জানুয়ারী পর্যন্ত সারাদেশের ২০টি এলাকার ৪০ হাজার ৮৬৯ পরিবারের ৪ লক্ষ ৭৫ হাজার ৬৩০ জন দর্শক জরিপে অংশ নেয়। যাদের বয়স ১৬ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।
জরিপে ২৫ বছর- নতুন আইডিয়া নিয়ে আগামীর জন্য রেডি (রবি), ২৫ বছর – এখনই সময়, এখনই আগামী (গ্রামীণ ফোন), প্রথম নিঃশ্বাসটা বাবার বাড়ি থেকে শুরু, আর শেষ নিশ্বাসটা স্বামীর বাড়ি থেকে ;কি অদ্ভুত মেয়েদের জীবন, বিজ্ঞাপনগুলো দর্শকদের প্রশংসা কুঁড়িয়েছে।
এছাড়া আরো অনেক বিজ্ঞাপন দর্শকদের মাঝে দৃষ্টিকটু ও নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এর বড় কারণ বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) ছাড়া আর কোন স্যাটেলাইট চ্যানেলে অনুষ্ঠান বাছাই কমিটি নেই। কোন অনুষ্ঠান এবং বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে আর যাবেনা তার বিচার করার কোন প্রয়োজন মনে করেন না। আর যে কারনে দেশের স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলগুলো দর্শক ধরে রাখতে ব্যার্থ হচ্ছে।

The short URL of the present article is: https://tvforumbd.com/3imh


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

এ বিভাগের আরো খবর

২১ জুন-23 অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান